ইসলামের ইতিহাসে এক মারাত্মক ফিত্না হল ওহাবী নজদী ফিৎনা :- | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস



★ হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেন ” আমি নজদের জন্য কি করে দোয়া করবো ? কারন নজদ থেকেই তো ভুমিকম্প ও ফিৎনার সৃষ্টি (শুরু) হবে , এবং এখান থেকেই শয়তানের মাথার দিকটার আবির্ভাব ঘটবে।” অর্থাৎ ফিত্নাবাজ দলের প্রধান অংশ এখান থেকেই আবির্ভুত হবে।

দলীল-
√ বুখারী শরীফ -২/১০৫১
√ মিশকাত শরীফ ৫৮২ পৃষ্ঠা- ইয়ামন ও শামের বর্ননা অধ্যায় !

★ the Prophet (s) said, “There (in NAJD ) is the place of earthquakes and afflictions and from there comes out the side of the head of Satan ( শয়তানের মাথার দিকটার আবির্ভাব ঘটবে).”
Sahi Bukhari (Book #88 , Hadith #214 )


তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নামে আত্মপ্রকাশ করেছে যখন তাদের মুখোশ উন্মোচন হয়ে যায় তখন তাদের পরিচয় পাল্টে ফেলে। যেমন : তাদেরই ১টা দল হেফাজতে ইসলাম নাম দিয়েছিল যদিও এটা রাজনিতিক ফায়দা ছাড়া আর কোন উদ্দেশ্য ছিল না। তেমনি বর্তমানে প্রচলিত ইলিয়াসী ""তাবলিগ"" এর আকিদা হল ""ওহাবীদের"" অনুরুপ (same) আকিদা।

হাদিসে পাকে চির অভিশপ্ত নজদ আর আব্দুল ওহাব নজদীর জন্ম সেই নজদ প্রদেশেই। ভবিষ্যতবাণী হিসেবে সেই ""শয়তানের শিং"" যার প্রভাব আজ সারা পৃথিবীতে বিস্তার করছে ওহাবীয়া ওরফে তাবলিগ or ohabism, Dewbond movement নামে।


Origin Ohabism Fitnah :


ওহাবীদের প্রধান নেতা Muhammad ibn ʿAbd al-Wahhāb

Full name : Muhammad ibn Abd al-Wahhab
Born : 1703 'Uyayna, Najd
Died : 1792 (aged 88–89) Emirate of Diriyah
Era :  18th century
Region : present day Saudi Arabia
Main interests : Aqeedah
Notable ideas : Views on innovations within Islam, Islamic monotheism and polytheism, Takfeer of Associanists who supplicate to dead saints and prophets for divine providence[1][2]

Influenced by : এরা হল প্রাথমিক সুত্রপাতকারী
Ibn Taymiyyah
Mohammad Hayya Al-Sindhi
Ibn Qayyim Al-Jawziyya

Influenced : আব্দুল ওহাবের প্রধান শিষ্য এরা
Abd al-Aziz ibn Abd Allah ibn Baaz
Muhammad ibn al Uthaymeen
Muhammad Nasiruddin al-Albani
Syed Ahmed Khan

Muhammad ibn ʿAbd al-Wahhab (/wəˈhɑːb/; Arabic: محمد بن عبد الوهاب‎; 1703 – 22 June 1792)[3] was a preacher and scholar from Nejd in central Arabia who founded an Islamic movement today often known as "Wahhabism", although many adherents see this as a derogatory term coined by his opponents, and prefer it to be known as "Salafism".[4][5][3][6]


রেফারেন্স সমুহ :- সার্বজনীন wiki থেকে দেখে নিন [১-৬]

http://en.m.wikipedia.org/wiki/Muhammad_ibn_Abd_al-Wahhab




এই কুখ্যাত শয়তান ইবনে আব্দুল ওহাব নজদী পরিচয় সম্পর্কে কিতাবে বর্নিত আছে :-

” ইবনে আব্দুল ওহাব নজদী ১১১৪ হিজরী মুতাবিক ১৭০৩ সালে আরবের নজদ প্রদেশে জন্মগ্রহণ করে। তার পিতার নাম আব্দুল ওহাব। বড় ভাইয়ের নাম সুলাইমান। পিতা ও ভ্রাতা দুজনেই ওই সময় বিজ্ঞ আলেম হিসাবে খ্যাত ছিলেন। কিন্তু আব্দুল ওহাবের কনিষ্ঠ পুত্র ইবনে ওহাব অত্যন্ত উদাসীন ও গোঁড়া চরিত্রের অধিকারী ছিলো। সে তার পিতা ও ভ্রাতার মতের বিপরীত চলতো এবং প্রায়ই তাদের বিরুদ্ধাচরণ করতো এবং মনগড়া নতুন মত প্রচার করে ফিৎনা পয়দা করতো। ১১৪০ হিজরী হতে এই নজদী ফিৎনার সৃষ্টি হয়। সে পবিত্র মক্কা শরীফ মদীনা শরীফের নিরীহ লোকদের পাইকারী হত্যা করে। হেরেমাইন শরীফাইনের বসবাস কারী স্ত্রী- কন্যা দের ধর্ষন করেছে। পুরুষদের দাস এবং মহিলাদের দাসীতে পরিনত করেছে। সাইয়্যিদ বংশের অনেককে শহীদ করেছে। এমনকি মসজিদে নববী শরীফের মূল্যবান সব বিছানা ও ঝাড়বাতি গুলো সে নজদে নিয়ে যায়। হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু আনহু উনাদের মাজার শরীফগুলোকে এবং আহলে বাইত শরীফ উনাদের মাজার শরীফ গুলো ভেঙ্গে চুরমার করে দিয়েছে। এমনকি হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার রওজা শরীফ ভেঙ্গে দেয়ার জন্য একদল নজদী অনুসারী উদ্যাত হলে আল্লাহ এক সাপ পাঠিয়ে তাদের হত্যা করলেন।”


এরা নিজে বেপর্দা কিন্তু মানুষকে পর্দার বয়ান করে।

দলীল–
√ ফতোয়ায়ে শামী
√ ইশয়াতে হক্ব
√ সাইফুল মাজাহাব
√ সাইফুল জব্বার


এই প্রসঙ্গে হানাফী মাযহাবের বিখ্যাত কিতাব ” রদ্দুল মুখতার ” কিতাবে বর্নিত হয়েছে–

كما وقع في زماننا في اتباع عبد الوهاب الذين خرجوا من نجد وتغلبوا علي الحرمين وكانوا ينتحلون الي الحنا بلة لكن هم اعتقدوا انهم هم المسلمون وان من خللف اعتقادهم مشركون و استباعوا بذلك قتل اهل السنة و قتل علماء هم

অর্থ- যেমন আমাদের সময় সংঘটিত আব্দুল ওহাব নজদীর অনুসারীদের লোমহরর্ষক ঘটনা প্রনিধান যোগ্য। তারা নজদ থেকে বের হয়ে মক্কা মদীনার উপর অধিপত্য বিস্তার করেছিলো। তারা নিজেদের হাম্বলী মাজহাবের অনুসারি বলে দাবি করতো। আসলে তাদের দৃঢ় বিশ্বাস ছিলো, তারাই শুধু মুসলমান বাকি সবাই মুশরিক। এজন্য তারা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের অনুসারীদের হত্যা করা জায়িয মনে করেছে , এবং অনেক আলেম কে হত্যাও করেছে !”

দলীল-
√ রদ্দুল মুখতার-৩ খন্ড ৪২৭ পৃষ্ঠা – বাবুল বুগাত !

এছাড়া অনুরুপ বর্ণনা বিখ্যাত তাফসীর গ্রন্থ ” তাফসিরে সাবী ” ৩ খন্ড ২৫৫ পৃষ্ঠায় ও বর্নিত আছে !

এই ইবনে ওহাব নজদীর কিছু কুফরী আক্বীদা –
* মুসলমান দের তুলনায় কাফিররা লা ইলাহা ইল্লাহ এর অর্থ ভালো জনতো ! ( কাশফুল শুবহাত ৩য় অধ্যায় ৭ পৃষ্ঠা )

* নবীজী মক্কা শরীফের নেককার কাফিরদের মূর্তি ভেঙ্গে অন্যায় করেছেন !( কাশফুল শুবহাত ২য় অধ্যায়)

* রওজা শরীফ জিয়ারত নিষেধ !

* ৬০৬ হিজরী হতে তার সময় পর্যন্ত সবাই কাফের !

* নবীগন রওজা পাকে জীবীত নন !

* চার ইমামের অধিকাংশ কথাই ভুয়া !

নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক।

দলীল–
√আব্দুল ওহাব নজদী রচিত কিতাবুল আক্বায়িদ


ওহাবী মতবাদ কিভাবে সৃষ্টি হলো জানতে Confession of a British Spy বইটি পড়ুন। (গুগলে সার্চ করলে বইটি পাবেন)



দেওবন্দী মৌলবীরা এই নজদীর প্রতি কি ধারনা রাখতো সেটা দেখুন তাহলেই হিসাব সহজে মিলাতে পারবেন।

(১) দেওবন্দী দের ইমাম রশীদ আহমদ গাঙ্গুহী বলেছে-

” মুহম্মদ ইবনে আব্দুল ওহাব নজদীর অনুসারী কে ওহবী বলা হয় । তার আক্বীদা ভালো ছিলো !”

দলীল-
√ ফতোয়ায়ে রশিদীয় ১/১১৯ – তাকলীদ অধ্যায় !

(২) আশরাফ আলী থানবীর খলীফা শামসুল হক ফরিদপুরী লিখেছে –

” অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষার্ধে আরব দেশে মুহাম্মদ ইবনে আব্দুল ওহাব নামক এক ধর্মীয় নেতা এবং রাষ্ট্রীয় নেতা গুজারিয়াছেন। ক্ষুদ্র রাষ্ট্র হইলেও তিনি বেশ প্রভাবশালী ছিলেন আরব দেশে বেশ প্রভাব বিস্তার করিয়াছিলেন। অনেকগুলো সংস্কার মূলক কাজও তিনি করিয়াছিলেন !’

দলীল-
√ তাছাউফ তত্ত্ব ৩৮ পৃষ্ঠা !

(৩) বাংলাদেশের ওহবী মতবাদ প্রচারকারী দেওবন্দীদের মাসিক মদীনা পত্রিকায় লিখা হয়েছে –

” শায়েখ মুহাম্মদ ইবনে আব্দুল ওয়াহহাব নজদি ছিলেন আরবের একজন সংস্কারক (মুজাদ্দিদ) আলেম। ধর্মের নামে ভন্ডামীর বিরুদ্ধে তিনি আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন।”

দলীল-
√ মাসিক মদীনা- সেপ্টেম্বর,২০১০ সংখ্যা ! ৫০ পৃষ্ঠা !


★★★ এবার এদের সম্পর্কে কিছু ভবিষ্যতবানী হাদিস থেকে *****







♦HADITH---

Hazrat Abu Huzaifa (Radiallhu Anhu) narrates a Hadith concerning the leaders of the mischief makers: “I swear by Allah that the Holy Prophet (Sallal Laahu Alaihi Wasallam) has not left out a single leader of Fitna from this day to the day of Qiyamah. Their followers would number 300 or more and further gave their names and that of their tribes.” (Abu Dawood)

♦HADITH---

Narrated Ibn ‘Umar: The Prophet (s)said, “O Allah! Bestow Your blessings on our Sham! O Allah! Bestow Your blessings on our Yemen.” The People said, “And alsoon our NAJD .” He said, “O Allah! Bestow Your blessings on our Sham(north)! O Allah! Bestow Your blessings on our Yemen.” The people said, “O Allah’s Apostle! Andalso on our NAJD .” I think the third time the Prophet (s) said, “There (in NAJD ) is the place of earthquakes and afflictions and from there comes out the side of the head of Satan.” Sahi Bukhari (Book #88 , Hadith #214 )



♦HADITH----

Abdullah bin Umar (Radiallhu Anhu) narrates in Muslim Shareef: “The Holy Prophet (Sallal Laahu Alaihi Wasallam) once emerged from the room of his wife, Hazrat Ayesha (Radiallahu Anha) and pointing towards Najd exclaimed:
‘This is the center of Kufr from where the horn of Shaitaan will rise’.”
(Muslim Shareef Vol. ii, PP. 1394)

♦HADITH----

Malik related to me from Abdullah ibn Dinar Radi Allahu anhu that Abdullah ibn Umar Radi Allahu anhu said, “ I saw the Messenger of Allah Salla Allahu ta’ala ‘alayhi wa Sallam pointing at the EAST ( Najd) and saying, ‘The cause of dissension is here. The cause of dissension is here, from where the helpers of shaytan arise.’ “

IMAM MALIK’S Radi Allahu anhu MUWATTA (Book #54, Hadith #54.11.29)

♦HADITH---

Sahl b. Hunaif reported Allah’s Apostle Salla Allahu ta’ala ‘alayhi wa Sallam as saying: There would arise from the east( Najd) a people with shaven heads. Sahi Muslim (Book#005, Hadith #2338)

(Mishkat Shareef pp/309 – Prints may vary and pages may be different in other publications)


♦HADITH----

Ibn ‘Umar reported
that he heard Allah’s Messenger (may peace be upon him) as saying (in a state) that he had turned his face towards the EAST ( Najd) : Behold, turmoil would appear from this side, from where the horns of Satan would appear.

Sahi Muslim
(Book #041 , Hadith #6938 )

U can seE here also::- this hadith in some different narration

Sahi Muslim
(Book #041 , Hadith #6939 )

Sahi Muslim
Book #041 , Hadith #6940 )

Sahi Muslim
(Book #041 , Hadith #6942 )

Sahi Muslim
(Book #041 , Hadith #6943 )

Sahi Muslim
(Book #001 , Hadith #0087 )

Sahi Muslim
(Book #001 , Hadith #0088 )


♦HADITH----

It is reporter on the authority of Abu Huraira that the Messenger of Allah (may peace and blessings be upon him) observed: There came the people of Yemen who are soft of hearts, tender in feelings: the beliefis that of the Yemenites, the sagacity is that of the Yemenites and the summit of unbelief is towards the EAST ( Najd)
.
Sahi Muslim
(Book #001 , Hadith #0092 )

♦HADITH----

It is reported on the authority of Jabir b. Abdullah that the Messengerof Allah (may peace and, blessings be upon him) observed: The callousness of heart and sternness is in the EAST ( Najd) and faith is among the people of the Hijaz(Medina).

Sahi Muslim
(Book #001 , Hadith #0095 )

★NAJD IS THE CENTRAL EASTERN PART OF ARABIA LYING EXACTLY TO THE EAST OF HEJAZ OR MEDINAH, PRESENTLY CALLED AS RIYADH HAIL , BURRAYDAH THE CAPITAL OF HYPOCRITES WAHHABIS AND SALAFIS , THE BIRTHPLACE OF THE GREAT DEVILS AND FITNAH IBN ABDUL WAHHAB AND THE PRESENT WAHHABI SALAFI SAUD DYNASTY



♦HADITH----

It is reported in Mishkat from Hazrat Abu Said Khudri (Radiallhu Anhu) who narrates that: “Once we
were in the presence
and company of the Holy Prophet (sallallahu alai hi wa sallam). He was distributing the booty (Spoils ofWar) when a person
named Zul-Khawaisara, who was from the tribe of Bani Tamim(Prominent Najd Tribe) addressed the Holy Prophet
(sallallahu alai hi wa sallam) “Oh Muhammad Be Just!” “. The Prophet(Sallal Laahu Alaihi Wasallam) replied: “A Great pity
that you have doubts, if I am unjust then who will be just, you are a loser and a failure. “
Zul-Khawaisara’s attitude infuriated
Hazrat Umar (Radiallhu Anhu) and he pleaded with the Prophet (sallallahu alai hi wa sallam)to permit
him to slay
Zul-Khawaisara. The Prophet (sallallahu alai hi wa sallam) remarked: “Leave him, as his slaying will serve no good purpose,
as he is not the only individual but there are a host of others like him and and if you compare their
prayers and fasting to
that of yours, you yourself will feel ashamed. These are the people whowill recite the Quran but it will
not go beyond their
throats, with all these apparent virtues they will leave the fold of Deen just like the arrow leaves the
bow.

Miskhat Shareef, pp/535 /

Sahi Bukhari 9:527 & 8:184

SAHI BUKHARI (Book #84 , Hadith #67 )






                              IMPORTANT NOTE :



                              1) Ibn ‘Abd al-Wahhab :

""" belonged to the """"Bani Tamim tribe"""". He was born in Uyayna village near the town of Huraimila in the Najd Desert
in 1111 A.H. (1699) and died in 1206 (1792).

                              2) Zul Khuwaisra :

– the man who showed so much disrespect to the Prophet (Sallal Laahu Alaihi Wasallam) was from the """"tribe of Bani
Tamim(a Prominent Tribe of Najd)""""

                                     NOTE :

THE HADITH OF NAJD (নজদ) AND EAST (পুর্বাঞ্চল) ARE

1.NAJD IS NAJD AND IRAQ IS IRAQ
2.PROPHET MUHAMMAD (SAW) CLEARLY
distinguished between Najd and
Iraq. (রাসুলুল্লাহ সা. স্পষ্টভাবে নজদ ও ইরাকের পার্থক্য সহিহ হাদিসে দ্বারা করে দিয়েছেন আমি নিজে পড়েছি এগুলো সম্পর্কে অনেক হাদিস আছে)

------------------------------------



♦Narrated Ibn ‘Umar: I took part in a Ghazwa towards NAJD along with Allah’s Apostle and we clashed with the enemy, and we lined up for them.

Sahi Bukhari
(Book #59 , Hadith #455 )


♦It is also established in the authentic Sunna that after Abu Talib’s death by about three years, in the 10th year of the Hijra,

""""""""""""""""on the
actual night that the Prophet was preparing to leave Makka for Madina, they plot to kill him by the
collective hand of a conspiracy of the tribes was hatched up by Iblis in the guise of a venerable old man
(shaykh jalîl) who, when asked who he was, he simply answered”An old man from Najd” (shaykhun min
Najd). The reports go on to refer to him as “The Old Man from
Najd” (al-shaykh al-najdî).


★Hadith cited by Ibn Hisham, al-Sira al-Nabawiyya (3:6-8);
★al-Tabari, Tafsir (9:227-228) and
★Tarikh (1:566-567);
★Ibn Kathir, Tafsir (“sahîh” 2:303 on verse 8:30) and
★al-Bidaya wa al-Nihaya;
★al-Suyuti,
★al-Durr al-Manthur (verse 8:30).


HADITH----

Hazrat Imraan, the son of Hazrat Haseen (Radiallhu Anhu) reports:

that the Prophet (Sallal Laahu Alaihi Wasallam) disliked three tribes life long.

(1) Banu Saqeef;

(2) Banu Hanifa(a Najd Tribe );

(3) Banu Umayya.

Hadith (Tirmizi Shareef)

♦IMPORTANT NOTE :
Ibn ‘Abd al-Wahhab belonged to theBani Tamim tribe

________________________________

Zul Khuwaisra – the man who showed so much disrespect to the Prophet (Sallal Laahu Alaihi Wasallam) was from the tribe of Bani
Tamim(a Prominent Tribe of Najd).

"""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""
The royal family of Saudi Arabia, Al Saud , , trace their lineage to """"""""Banu Hanifa Tribe of Najd""""""""""""""""
Moulana Muhammad Ali Jauhar""""""""""""""""
has made the following observations about the Wahhabi Najdi
Jamaat



♦HADITH----

Sahl b. Hunaif reported Allah’s Apostle Salla Allahu ta’ala ‘alayhi wa Sallam as saying: There would arise from the east( Najd) a people with shaven heads.

Sahi Muslim (Book#005, Hadith #2338)

visit here for more details. here shown this najd with map :-
এই লিংকে বিস্তৃত ভাবে ম্যাপ সহ দেয়া হয়েছে :-

https://najd2.wordpress.com/