রাসূল (দুরুদ) এর ইন্তিকালের সময় মালাকুল মাওতের আগমন ও কথাবার্তা


রাসূল () এর ইন্তিকালের সময়মালাকুল মাওতের আগমন কথাবার্তা
=======================
রাসূল () আজরাঈল () এরসাথে কথা বলেছেন, মর্মে সহিহসূত্রে অনেক হাদিসবর্ণিত হয়েছে।
মিশকাত শরীফে ’’বাবুওফাতুন্নাবী’’ () অধ্যায়ে হযরতআলী ইবনে হুসাইন() এর একটি দীর্ঘহাদিস রয়েছে, উক্তহাদীসে আজরাঈল () ঘটনাটিএভাবে উল্লেখ আছে।
** -‘‘
অতঃপর আজরাঈল () রাসূল() এর হুযরা মোবারকে প্রবেশের অনুমতিচাইলেন। তারপর জিবরাঈল () বললেনযে, ইয়া রাসূলাল্লাহ ()! এইযে মালাকুল মওতআজরাঈলও আপনার নিকটআসবার অনুমতি চাইেছন। তিনিএকমাত্র আপনি ব্যতিতআর কখনও কোনমানুষের নিকট আসতেঅনুমতি চাননি। অতএবতাকে প্রবেশের অনুমতিদিন। তখন হুযুরপাক () তাকে অনুমতিদিলেন। তিনি এসেহুজুর () কে সালামকরলেন এবং বললেন, আপনি অনুমতি দিলেআপনার রূহ মোবারককবজ করব। আরআমাকে তা বাদদিতে বললে, আমিতা বাদ দিব।তখন হুযুর () বললেন, হে আজরাঈল () আপনিকি এইরূপ করতেপারবেন? আজরাঈল () বললেন, হ্যাঁ, আমি এরূপওআদিষ্ট হয়েছি যে, আমি যেন আপনারনির্দেশ অনুযায়ী চলি।রাবী বলেন, এইসময় হুযুর () হযরতজিবরাঈল () এর দিকেতাকালেন। জিবরাঈল () বললেন, হে মুহাম্মদ ()! আল্লাহপাক আপনার সাক্ষাত লাভেরজন্য অত্যন্ত আগ্রহী। এটাশুনামাত্র হুযুরে পাক() আজরাঈল () কে বললেন, যে জন্য আপনিআদিষ্ট হয়েছেন তাবাস্তবায়ন করন।তারপর রূহ মোবারককবজ করলেন।’’সুত্র:----. ইমাম বায়হাকী : দালায়েলুন নবুওয়াত : /২৬৭পৃ., দারুলহাদিস, মিশর হতেপ্রকাশিত।
. খতিব তিবরিযী : মিশকাতশরীফ : হাদিস : ৫৭২০:
. ইমাম ইবনেসা : আত্-তবকাতুল কোবরা: /২৬০ পৃ:. আল্লামা ইমামজালালুদ্দীন সুয়ূতি : আল-খাসায়েসুল কোবরা: /৫৩০ পৃ. হাদিস : ৩৩৯৯
. ইমাম তাবরানী : মুজামুল কবীর: /১২৮ : হাদিস: ২৮৯০
. ইমাম আদনী: আল মুসনাদ : /২৪৫ পৃ:. ইমাম জুরজানী : তারীখেজুরজান : /৩৬২পৃ.. ইমাম ইবনেহাজার হায়সামী : মাযমাউয যাওয়াইদ : /৩৫ পৃ
. ইমাম শাফেয়ী: আস সুনানিল নাক্কাস : /৩৩৪ পৃ: . ইমাম কুস্তালানী : মাওয়াহেবে লাদুন্নীয়া : /৩৬০ পৃ..যুরকানী,শরহুলমাওয়াহেব,১২/১২৭পৃ.দারুল কুতবইলমিয়্যাহ,বযরুত।

**-‘‘
হযরত আব্দুল্লাহ ইবনেআব্বাস () বর্ণনা করেন- রাসূল () এর কাছেমালাকুল মওত আযরাঈল() (মানব বেশে) আগমনকরল। হুযুর () এরমাথা মোবারক তখনহযরত আলী () এরকোলে ছিল। মালাকুল মওতভেতরে আসার অনুমতিচেয়ে বলল, আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহিওয়া বারাকাতুহু। হযরত আলী () বললেন, আপনি চলে যান।এখন আমরা আপনারপ্রতি মনোযোগ দিতেপারব না। নবীকরীম () বললেন, আবুলহাসান! তুমি কিতাকে চেন? ইনিমালাকুল মাওত। অতঃপরতিনি মালাকুল মাওতকেপ্রবেশের অনুমতি দিলেন।মালাকুল মওত প্রবেশকরে বললেন,আপনারপরওয়ারদিগার আপনাকে সালামপ্রেরণ করেছেন। হযরতআলী () বলেন, আমরাজানতে পেরেছি যে, মালাকুল মাওত এরআগে কারও পরিবারকে সালামবলেন নি এবংপরেও আর কাউকেসালাম বলবেন না।’’সুত্র:----. ইমাম তাবরানী : মুজামুল কবীর: ১২/১৪১ : হাদিস: ১২৭০৮
. আল্লামা ইমামজালালুদ্দীন সূয়তী : খাসায়েসুল কোবরা: /৫৩১ পৃ: হাদিস : ৩৪০১
. আল্লামা ইমামবায়হাকী : দালায়েলুন নবুওয়াত : /২৬৮ পৃ.. ইমাম কুস্তালানী : মাওয়াহেবে লাদুন্নীয়া : /৩৬০ পৃ.. ইমাম যুরকানী : শরহুলমাওয়াহেব : ১২/১২৭পৃ. দারুল কুতুবইলমিয়্যাহ, বয়রুত।

**
তারপরে আজরাঈল () এরঅবস্থা সম্পর্কে অন্যহাদিস এসেছে এভাবে-
-‘‘
হযরত আলী () বর্ণনাকরেন, রাসূল () ওফাতহয়ে গেলে মালাকুল মাওতআযরাঈল () আকাশে কাঁদতেকাঁদতে গেলেন। যিনিহুযুর () কে সত্যনবীরূপে প্রেরণ করেছেন, তার কসম, আমিআকাশেওয়া মুহাম্মদবলে(আজরাঈলকে) কাঁদতে শুনেছি।’’ সুত্র:----. ইমাম আবুনঈম : হুলিয়াতুল আউলিয়া:. আল্লামা ইমামজালালুদ্দীন সূয়তী : খাসায়েসুল কোবরা: /৫৩২ : হাদিস: ৩৪১১

Previous Next

نموذج الاتصال