হায়াতে তাইয়িবা বা পবিত্র জীবন [ইমাম সুয়ূতী (রহ) 👉‘তাফসীর আদ দুররে মানসূর’👉 সূরা নাহল:৯৭ এর তাফসীর] | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস


হায়াতে তাইয়িবা বা পবিত্র জীবন

(কৃতজ্ঞতায়ঃ দুররুস সা'আদাত) 

ইমাম সুয়ূতী (রহ) রচিত হাদীস ভিত্তিক তাফসীর গ্রন্থ ‘তাফসীর আদ দুররে মানসূর’ থেকে সংকলিত।
সূরা নাহল:৯৭ এর তাফসীর।

আল্লাহ তাআলার বাণী

مَنْ عَمِلَ صَالِحًا مِنْ ذَكَرٍ أَوْ أُنْثَى وَهُوَ مُؤْمِنٌ فَلَنُحْيِيَنَّهُ حَيَاةً طَيِّبَةً وَلَنَجْزِيَنَّهُمْ أَجْرَهُمْ بِأَحْسَنِ مَا كَانُوا يَعْمَلُونَ

মুমিন হয়ে পুরুষ ও নারীর মধ্যে যে কেউ নেক আমল করবে, তাকে আমি নিশ্চয়ই পবিত্র জীবন দান করব এবং তাদেরকে তাদের (সৎ) কাজের শ্রেষ্ঠ পুরষ্কার দান করব।– সূরা নাহল:৯৭

তাফসীর

ইমাম আব্দুর রাযযাক, ফিরইয়াবী, সাঈদ ইবনে মানসূর, ইবনে জারির, ইবনুল মুনযির এবং ইবনে আবি হাতিম হযরত ইবনে আব্বাস (রা) থেকে বর্ণনা করেন। তাকে এই আয়াতের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন-

الْحَيَاة الطّيبَة الرزق الْحَلَال فِي هَذِه الْحَيَاة الدُّنْيَا وَإِذا صَار إِلَى ربه جازاه بِأَحْسَن مَا كَانَ يعْمل

হায়াতে তাইয়িবা হলো বান্দাকে এই দুনিয়াতে হালাল রিযিক প্রদান করা আর যখন সে তার প্রতিপালকের সাথে সাক্ষাত করবে তখন সে তার আমলের উত্তম প্রতিদান লাভ করবে।

ইমাম ইবনে জারির হযরত যাহহাক (রহ) থেকে বর্ণনা করেন-

يَأْكُل حَلَالا وَيشْرب حَلَالا ويلبس حَلَالا

হায়াতে তাইয়িবা হলো হালাল খাদ্য, হালাল পানিয় এবং হালাল পোষাক।

ইমাম ইবনে আবি হাতিম হযরত ইবনে আব্বাস (রা) থেকে বর্ণনা করেন-

الْكسْب الطّيب وَالْعَمَل الصَّالح

হায়াতে তাইয়িবা হলো পবিত্র উপার্জন এবং নেক আমল।

ইমাম ইবনে জারির, ইবনুল মুনযির এবং ইবনে আবি হাতিম হযরত ইবনে আব্বাস (রা) থেকে বর্ণনা করেন- হায়াতে তাইয়িবা হলো-

السَّعَادَة

সাআদাত বা সৌভাগ্য।

ইমাম আসকারী (রহ) আল আমসালে হযরত আলী (রা) থেকে বর্ণনা করেন যে- হায়াতে তাইয়িবা হলো

القناعة

কানাআত বা অল্পেতুষ্টি।

ইমাম ইবনে জারির, ইবনুল মুনযির এবং ইবনে আবি হাতিম, হাকিম এবং বায়হাকী (রহ) হযরত ইবনে আব্বাস (রা) থেকে বর্ণনা করেন- হায়াতে তাইয়িবা হলো কানাআত বা অল্পেতুষ্টি। আর রাসূলুল্লাহ (সা) এই দুআ করতেন-

اللَّهُمَّ قنعني بِمَا رزقتني وَبَارك لي فِيهِ واخلف عليّ كل غَائِبَة لي بِخَير

হে আল্লাহ! আপনি আমাকে যে রিযিক প্রদান করেছেন তার মধ্যে তুষ্টি দান করেন, তার মধ্যে আমার জন্য বরকত দান করেন এবং আমার চোখের অন্তরালে যেসব বিষয় আছে সেসব বিষয়ে কল্যাণের সাথে আপনি আমার প্রতিনিধি হয়ে যান।

ইমাম তাবরানী আউসাতে এবং ইমাম ওকী হযরত জাবির (রা) থেকে বর্ণনা করেন। রাসূলুল্লাহ (সা) ইরশাদ করেন-

القناعة مَال لَا ينْفد

কানাআত বা অল্পেতুষ্টি এমন সম্পদ যা কখনো শেষ হয় না।

ইমাম ইবনে আসাকীর হযরত হাসান থেকে হায়াতে তাইয়িবা প্রসঙ্গে বর্ণনা করেন যে-

لنرزقنه قناعة يجد لذتها فى قلبه

 যাকে কানাআত বা অল্পেতুষ্টি গুণ দান করা হলো, সে তার অন্তরে এর স্বাদ ও মাধুর্য অনুভব করবে।

ইমাম আহমদ, মুসলিম, তিরমিযী, ইবনে মাজাহ, হযরত ইবনে উমর (রা) থেকে বর্ণনা করেন। রাসূলুল্লাহ (সা) ইরশাদ করেন-

قد أَفْلح من أسلم ورزق كفافاً وقنعه الله بِمَا آتَاهُ

ঐ ব্যক্তি সফলকাম- যে ইসলাম গ্রহণ করেছে এবং প্রয়োজনীয় পরিমাণ রিযিক পেয়েছে আর আল্লাহ তাকে যা দান করেছেন তার তার উপর তুষ্ট হয়েছে।

ইমাম তিরমিযী, নাসাঈ হযরত ফাযালা ইবনে উবায়দ (রা) থেকে বর্ণনা করেন। তিনি রাসূলুল্লাহ (সা) কে বলতে শুনেছেন-

من هدي إِلَى الْإِسْلَام وَكَانَ عيشه كفافاً وقنع بِهِ

ঐ ব্যক্তি সফলকাম যাকে ইসলামের দিকে হিদায়াত করা হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় পরিমাণ রিযিক লাভ করেছে আর এর উপর তুষ্ট হয়েছে।

ইমাম ইবনে আবি শাইবা, ইবনে জারির, ইবনুল মুনযির এবং ইবনে আবি হাতিম হযরত হাসান (রহ) থেকে বর্ণনা করেন যে,

مَا تطيب الْحَيَاة لأحد إِلَّا فِي الْجنَّة

হায়াতে তাইয়িবা বা পবিত্র জীবন (প্রকৃত সুখ ও স্থায়ী শান্তির জীবন) কেবল জান্নাতেই হতে পারে।