'একটি মন্দ অভ্যাস' | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস



গাড়িতে, লিফটে বা যেকোনো পাব্লিক প্লেসে কিছু লোককে খুব উচ্চস্বরে কথা বলতে দেখা যায়। মোবাইলে হোক বা সরাসরি। এই সকল লোকেরা একটুও অনুধাবন করতে পারে না তার পাশে থাকা লোকটি কতটা অস্বস্তি অনুভব করছে, কতটা বিরক্ত হচ্ছে।

এর প্রকোপ গ্রাম-গঞ্জের স্বল্প শিক্ষিত মানুষদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। গাড়িতে, বাজারে বসে এমনসব কথার ছড়াছড়ি যা সম্পূর্ণ অনর্থক। তাও আবার চিৎকার-চেচামেচি করে। উচ্চস্বরে কথা বলা এটা সুন্নাহ পরিপন্থীও বটে।

উম্মত হিসেবে আমাদের প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কথা বলার স্টাইল ফলো করা উচিত। তিনি ধীরেসুস্থে, মধ্যম স্বরে কথা বলতেন। বুঝার স্বার্থে কথাকে কয়েকবার পুনরাবৃত্তি করতেন। নম্রভাবে, স্পষ্টকরে কথা বলতেন যেন কারও বুঝতে কষ্ট না হয়।

কথার দ্বারা বা কাজের দ্বারা মানুষকে কষ্ট দিতে ইসলাম নিষেধ করে। আমার রাসূলে আরাবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তো বলেই দিয়েছেন, উত্তম মুসলমান সে যার মুখ ও হাত থেকে অপর মুসলমান নিরাপদ থাকে। ইসলামে তো কোনো সালাতরত বা ওযীফা পাঠরত ব্যক্তির কাছে বসে কুরআন তিলাওয়াত করতেও নিষেধ রয়েছে যদি ওই ব্যক্তির কষ্ট হওয়ার আশংকা থাকে।

আল্লাহু আকবার। এই সুন্দর দ্বীন আল্লাহ আমাদেরকে দিয়েছেন। আর আমরা কতটুকু মানছি। মানুষ লাগাতার নিজের কাজ-কর্মের দ্বারা কষ্ট দিয়ে নিজেকে খুব নেককারও ভাবছি। প্রিয় মুসলিম উম্মাহ! পাব্লিক প্লেসে চিৎকার-চেচামেচি করে কথা বলা খুবই মন্দ অভ্যাস। এটা পরিত্যাগ করা মুমিনের জন্য আবশ্যক।