বিশ্ব ইজতেমায় নামাজ আদায় করলে মক্কা-মদিনার চেয়েও বেশি সওয়াব হয় (নাউজুবিল্লাহ) | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

## ইলিয়াছি তাবলীগি কেন পরিত্যাজ্য,নিচের লিখাটি একটু কষ্ট করে ২ মিনিট সময় নিয়ে পড়ুন##
=====================================
✘তাবলিগীদের কাছে টঙ্গীতে নামাজ পড়া ``মক্কা শরীফ-মদীনা শরীফ``-এ নামায পড়া থেকেও উত্তম✘
=====================================
## পোস্টটি বেশি বেশি শেয়ার করুন। ###
+++++++++++++++++++++++++++++++++++++
অাসতাগফিরুল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ।
কত জঘন্য মিথ্যাচার।
ইতিহাসে এমন নির্লজ্জ মিথ্যাচার আর কেউ করেছে কিনা সন্দেহ।

“দাওয়াতে তাবলীগ” নামক এক তাবলিগী বই পড়তে গিয়ে হতবাক হয়ে গেলাম।
এমন মিথ্যাচার কিভাবে করা সম্ভব?

এই তাবলিগী লেখক উক্ত কিতাবের ৮০ পৃষ্ঠায় লিখেছে, "মক্কা শরীফে এক রাকাত নামাজ পড়লে এক লক্ষ রাকাত নামাজের ছাওয়াব।

মদীনা শরীফে নামাজ পড়লে পঞ্চাশ হাজার রাকাত রাকাতের ছাওয়াব।

বায়তুল মুকাদ্দাস শরীফে নামাজ পড়লে পঁচিশ হাজার রাকাত নামাজের ছাওয়াব।

কিন্তু... বিশ্ব এস্তেমায় এসে নামাজ পড়লে উনপঞ্চাশ কোটি রাকাত নামাজের ছাওয়াব হয়"।
(লা’হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ)
রেফারেন্স :
✘বই "দাওয়াতে তাবলীগ", পৃষ্ঠা ৮০
লেখক : আশরাফ আলী তালেবী
প্রকাশনা : আফতাবীয়া লাইব্রেরি✘

জঘন্য মিথ্যাচারের এখানেই শেষ নয়।
এই নিকৃষ্ট কথার দলীল দিয়েছে "ইবনে মাজাহ শরীফ ও আবু দাউদের" নাম ভাঙ্গিয়ে।

নিম্নে কিতাবের স্ক্যান কপি দেয়া হলো :
এতটুকুও বুক কাঁপলো না এমন মিথ্যাচার করতে?
আল্লাহ পাকের ঘর কাবা শরীফ, নবীজীর মসজিদ মসজিদে নববী থেকেও এদের টঙ্গীর ময়দানের দাম বেড়ে গেলো?

এরপরও কি সাধারন মানুষ এদের ফাঁদে পা দিয়ে তাবলিগে যোগ দিবে?

এবার দেখুন উক্ত কিতাবকে সত্যায়ন করেছে কারা?

বাংলাদেশের দেওবন্দীদের অন্যতম সব মুরুব্বীরা যারা পুস্তিকাটিকে সত্যায়িত করেছে তাদের বক্তব্যসহ স্ক্যান কপি দেয়া হলো:

এদের সত্যায়ন দ্বারাই বোঝা গেলো এরাও এই আক্বীদা পোষন করে থাকে।
তাদের কাছে টঙ্গীতে নামাজ পড়ার মূল্য মক্কা শরীফ, মদীনা শরীফ, বায়তুল মুকাদ্দাস শরীফ থেকেও বেশি।
নাউযুবিল্লাহ।
এরপরও যারা এদের দলে যোগ দিবে তারা আদৌ মুসলামান থাকবে কিনা বিচারের ভার আপনাদের হাতে থাকলো।