হাতে লিখিত বা হস্তে লিখিত হাদীস গ্রন্থের পান্ডুলিপির সংখ্যা | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

হাতে লিখিত বা হস্তেলিখিত হাদীস গ্রন্থের পান্ডুলিপির সংখ্যা
সম্মানীত পাঠকগণ
আমরা একটু পেছনের সোনালী দিনগুলির দিকে ফিরেগেলাম যেমন ২১৯ হিজরী ৩১৩ হিজরীথেকে ৭৭২ হিজরীপর্যন্ত এসময় ছিলনাবর্তমান সময়ের মত মুদ্রণ যন্ত্র কিন্তু তখনকার সময় আসমানী ইলমের উপর যতধরনের গবেষণা অধ্যাপনা সমকালীন সমস্যার সমাধান শিক্ষাদান করেছেন তারা সকলেই সবকিছু হাতে লিখে রাখতবিভিন্ন কাগজে বা বেগের থলে বা চামড়াড় থলে ইত্যাদিতে মোটকথা বলতে গেলেতারা এই ইলমেসাগরের যত কিছুইকরতো তা বেশীরভাগ লিখার জন্যনিজেদের হাতকেই ব্যবহার করেছেন যাকে সংক্ষেপে বলা হয় হন্তলিখিত পান্ডুলিপি যা আমাদের জন্য এক ইলমেসাগরের ভান্ডার বলে পরিচিত.আমাদের এই পূর্বপুরুষগণ যে আমাদের জন্যএত কষ্ট করে হাতে লিখে এই ইলমের সাগরকে আমাদের হাতে তুলে দিয়েছেন তা পৃথিবীর অন্যকোন ধর্মে এত তথ্য আছে বলে পাওয়া য়ায় না একমাত্র ইসলাম ধর্মের উপর এত কিতাবআদী রচিত হয়েছে.কিন্তু আফসোসের বিষয় হলোআমরা বর্তমান মুসলিম সমাজ মাত্র সিহাহসিত্তাহ নামক ১০ থেকে ১৫টি গ্রন্থ সহিত আমরা পরিচিত বা আমাদের দেশেরযারা আলেমগণ আছেনতারা এগুলিসম্পর্কে আমাদেরকে জানান না বা জানাতে আগ্রহী নন.আর আমার কথা কি বলব আমি কোন আলেম নই আমি অনেকদিন যাবতএটার উপর গবেষণা করে এবং অ্যমেরিকাতে বসবাসরত আমার এক ভাইয়ের সহযোগীতায় এই কিতাব গুলি হাতেপেয়েছি তাই আমি অধম আপনাদের সামনেযাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে নিজ হাতে লিখা হাদীসশাস্ত্রের পান্ডুলিপি গুলির সাথে আপনাদের পরিচয়করিয়ে দিতে চাচ্ছি যা বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন মিউজিয়ামে সংরক্ষিত আছে..এই পান্ডুলিপির সংখ্যা ২৭ টি পাওয়া য়ায় আরোঅধিক হতে পারে.হাদীস শাস্তের হাতেলিখিত ২৭ টি পান্ডুলিপি গুলি নিম্নরুপ....

০১.সহীহ ইবন হিব্বান :-হাফিয আবু হাতিম মুহাম্মদ ইবন হিব্বান আল-বাস্তী (মৃত-৩৫৪ হি:)
০২.সহীহ ইবন খুযাইমা :- হাফিয ইমাম আবু বক্করমুহাম্মদ ইবন ইসহাকইবন খুযাইমী নিশাপূরী (মৃত:৩১১ হি:)
০৩.সহীহ আবু আউয়ানা :- হাফিজ আবু আউয়ানা ইয়াকুব ইবন ইসহাক ইবন ইবরাহিম ইন ইয়াযীদ আল   ইসফারাইনী নিশাপূরী (মৃত:৩১৬ হি:)
০৪.আস সাহীহুল মুনতাকা :- হাফিয আবু আলী সাঈদইবন উসমান ইবন সাঈদ ইবনূস সাকানবাগদাদী (মৃত:৩৫৩ হি:)
০৫.সহীহ ইসমাঈলী :- হাফিযইমাম আবু বকর ইবন আহীম ইবন ইসমাঈল জুরজানী (মৃত ৩৭১ হি:)
০৬.আল মুস্তাখারাজ আল মুসলিম :-হাফিয আবু আউয়ানা ইয়াকুব ইবন ইসহাক.
০৭.আল মুস্তাখরাজ লি ইবন মানদাহ :- হাফিযআবুল কাসিম আবদুররহমান ইবন মুহাম্মাদ ইবন ইসহাক ইবন মানদাহ (মৃত:৪৭০ হি:)
০৮.আল-মুস্তাখরাজ :-আবু নুআইম আহমাদ ইবন আব্দুল্লাহ ইবন আহমাদইসফাহানী (মৃত:৪৩০ হি:)
০৯.মুসনাদে ইবন আবী উসামা :-ইমাম আল হারিস ইবন মুহাম্মদ ইবন আবু উসামাআবু মুহাম্মদ তাইমী বাগদাদী (মৃত:২৮২ হি:)
১০.মুসনাদে ইবন আবী আমর :-হাফিজ আবু আবদুল্লাহ মুহাম্মদ ইবন ইয়াহইয়া ইবন আবু আমর আল মাদানী আদ দারাওয়ারদী (মৃত:২৪৩ হি:)
১১.মুসনাদে তায়ালিসী :- ইমাম সূলাইমান ইবন দাউদইবন জারুদ অর্থাত আবু দাউদ আত তায়ালিসী আল বাসরী(মুত:২০৪ হি:)
১২.মুসনাদে আবু আউয়ানা :- হাফিয ইয়াকুব ইবন ইসহাক
১৩.মুসনাদে ইবন আবী শায়বা :- হাফিয ইবরাহিম ইবন উসমান আবু বকর আব্দুল্লাহ ইবন মুহাম্মদ ইবন আবী শায়বা আল ওয়াসতী আল কুফী (মৃত:২৩৫ হি:)
১৪.মুসনাদে আবু ইয়ালা :- হাফিয আহমদ ইবন আলী ইবনুল মুসান্না আল-মুসিলী আত তামীমী (মৃত:৩০৭ হি:)
১৫.মুসনাদে বাকী ইবন মাখলাদ :- ইমাম হাফিয আবু আবদুর রহমান বাকী ইবন মাখলাদ কুরতুবী (মৃত:৭৭২ হি:)
১৬.মুসনাদে বাযযার :- হাফিয আবু বকর আহমাদ ইবন আমর ইবন আবদুল খরিক বাসরী (মৃত:২৯২ হি:)
১৭.মুসনাদে ফিরদাউস :- হাফিয শেরওযাইহি ইবন শহরদার ইবন শের ওয়াইহী আদ দাইলামী (মৃত:৫০৯ হি:)
১৮.মুসনাদুল কাবীর :- হাফিয আল্লাহ ইবনে তাইমিয়া.
১৯.মুসনাদে আবদ ইবন হুমাইদ :- ইমাম হাফিয আবদ ইবন হুমাইদ ইবন নসর আল কাশশী (মৃত:২৪৯ হি:)
২০.মুসনাদে হুমাইদী :- ইমাম আবু বকর আবদুল্রাহ ইবনুয যুবাইর ইবন ঈসা কারশী আসাদী হুমাইদী মাক্কী (মৃত:২১৯ হি:)
২১.মুসনাদুল খাওয়ারযামী :-ইমাম হাফিয আবু বকর আহমাদ ইবন মুহাম্মদ ইবন গালিব খাওয়ারযামী বুরকানী (মৃত:৪২৫ হি:)
২২.মুসনাদে ইবন আবু আসিম :- শায়খ হাফিয ইমাম আবু বকর আহমাদ ইবন আমার নাবীল আবু আসিম শায়বানী (মৃত:২৮৭ হি:)
২৩.মুসনাদে ইবন জামী :-আবুল হুসাইন মুহাম্মদ ইবন আহমাদ মুহাম্মদ ইবন জামী (মৃত:৪০২ হি:)
২৪.মুসানাদে ইবন রাহওয়াইহী :- ইমাম ইসহাক ইবন ইবরাহীম ইবন মাখলাদ আবু ইয়াকুব হানযালী ওরফে ইবন রাহওয়াইহী আল মারওয়াযী (মৃত:২৩৮ হি:)
২৫.মুসনাদে রাযী :- ইমাম আবু ইসহাক ইবরাহীম ইবন নসর আর রাযী (মৃত: ৩৮৫ হি:)
২৬.মুসনাদে আবু হুরায়রা :- ইমাম মুহাদ্দিস আবু ইসহাক ইবরাহীম ইবন হারব আসকারী আস সিমসার(মৃত:২৮২ হি:)
২৭.মুসান্নাফে ইবন আবু শাইবা :-হাফিয ইমাম আব বকর আবদুল্লাহ ইবন মুহাম্মদ ইবন আবু শাইবা আল আবাসী (মৃত:২৩৫).এছাড়া আরো অনেক গ্রন্থ বিশ্বের বিভিন্ন জাদুগড়ে সংরক্ষিত রয়েছে.এই সমস্ত গ্রন্থাবলী সম্পুর্ণ হাতে লিখিত কপি জার্মান কুতুব খানায় সংরক্ষিত আছে.সম্মানীত পাঠকগণ আশাকরি আপনারা এই তথ্যগুলি ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য তুলে রাখবেন এবং বেশী বেশী করে শেয়ার করবেন...আল্লাহ আমিন...প্রচারে...মোখলেছিয়া সূন্নী খানকা শরীফ।