ইসলামী শরীয়তে চিংড়ি মাছ খাওয়া কেমন? | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

ইসলামী শরীয়তে চিংড়ি মাছ খাওয়া কেমন?
✍️মাওলানা ড. মুহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন
--------------------------------------------------
সওয়ালঃ- চিংড়ি(ইছা)মাছ খাওয়া কি জায়েজ? অনেকে হারাম বা মাকরুহ বলে থাকেন, শরীয়তের ফায়সালা কি? 

জওয়াবঃ- হানফী মাযহাব মতে সামুদ্রিক সকল মাছ খাওয়া বৈধ। চিংড়ি মাছ যেহেতু এক প্রকার মাছ সেহেতু সেটা খাওয়া জায়েজ। যাদের দৃষ্টিতে চিংড়ি মাছ নয় তাদের নজদিক সেটা হারাম হতেই পারে। আ'লা হযরত" আল ক্বামুস" অভিধান সহ একাধিক রেফারেন্স দিয়ে প্রমান করেছেন চিংড়ি এক প্রকার মাছ।চিংড়ি পানি ছাড়া জিন্দা থাকেনা। যেটা স্থলে পানি ছাড়া জিন্দা থাকে সেটা কিন্তু মাছ নয়।সুতারাং চিংড়ি খাওয়া জায়েজ  বা বৈধ। 
আ'লা হযরত(রহঃ) অভিধান শাস্ত্র,ইলমুত ত্বীব এবং ইলমুল হায়াওয়ান এই তিন ধরনের গ্রন্থ গবেষণা করে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন চিংড়ি  এক প্রকারের সামুদ্রিক মাছ। (আহকামে শরীয়ত কৃত - আ'লা হযরত, প্রথম খন্ড -পৃষ্টা ১৩)