আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টির জন্য ভালবাসার ৮টি ফযীলত | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস


কিয়ামতের দিন আল্লাহ পাক ইরশাদ করবেন: সে লোকেরা কোথায়? যারা আমার শ্রেষ্ঠত্ব ও মহত্ত্বের খাতিরে একে অপরকে ভালবাসত। আজ আমি তাদেরকে আমার আরশের ছায়াতলে জায়গা দেব। আজ আমার আরশের ছায়া ব্যতীত আর কোন ছায়া নেই। (সহীহ মুসলিম, ১৩৮৮ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ২৫৬৬)

আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন: “যারা আমার সান্নিধ্য লাভের উদ্দেশ্যে পরস্পরকে ভালবাসে, আমার উদ্দেশ্যে সভা-সমাবেশে উপস্থিত হয়ে আমার গুনগান করে, আমার উদ্দেশ্যে পরস্পর দেখা সাক্ষাৎ করে এবং আমারই ভালবাসা অর্জনের জন্য নিজেদের ধন সম্পদ পরস্পরের মধ্যে খরচ করে, তাদেরকে ভালবাসা আমার জন্য ওয়াজিব হয়ে যায়।” 
(আল মুয়াত্তা, ২য় খন্ড, ৪৩৯ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ১৮২৮)  

আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন, “আমার মহত্ত্ব ও সম্মানের খাতিরে যারা পরস্পর মুহাব্বত করে, তাদের জন্য পরকালে বিরাট নুরের মিনার হবে, যা দেখে নবী ও শহীদগনও ঈর্ষা করবেন এবং আকাংখী হবেন।” (তিরমিযী, ৪র্থ খন্ড, ১৭৪ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ২৩৯৭)  

যদি দুজন ব্যক্তি একমাত্র আল্লাহ তাআলার জন্য একে অপরকে ভালবাসে, তন্মধ্যে একজন বাস করে পূর্বে এবং অপরজন বাস করে পশ্চিমে। কিয়ামতের দিন আল্লাহ পাক উভয়কে একত্রিত করে ইরশাদ করবেন: এই সে ব্যক্তি যাকে তুমি আমার জন্য ভালবাসতে। (শুয়াবুল ঈমান, ৬ষ্ঠ খন্ড, ৪৯২ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ৯০২২)  

নিশ্চয় জান্নাতে ইয়াকুতের স্তম্ভ রয়েছে। যার উপর নির্মিত সুন্দর অট্টালিকা রয়েছে। ঐ অট্টালিকার দরজা সব সময় খোলা থাকে। তা এমন উজ্জ্বল ও চক চক করছে যেরূপ উজ্জ্বল তারকা চকচক করে। সাহাবা কিরামগণ আরজ করলেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) !َতাতে কারা বাস করবে? তিনি ইরশাদ করলেন: “সেসব লোক, যারা একমাত্র আল্লাহ পাকের উদ্দেশ্যে পরস্পরকে ভালবাসে, একমাত্র আল্লাহ পাকের উদ্দেশ্যে পরস্পর বসে আল্লাহকে স্মরণ করে এবং আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টির জন্য পরস্পর দেখা সাক্ষাৎ করে। (শুয়াবুল ঈমান, ৬ষ্ঠ খন্ড, ৪৮৭ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ৯০২২)  

আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি কামনার্থে বন্ধুত্ব স্থাপনকারীগণ আরশের চারপাশে ইয়াকুতের চেয়ারে বসা থাকবে। (আল মুজামুল কবির, ৪র্থ খন্ড, পৃষ্ঠা ১৫০, হাদীস নং: ৩৯৭৩)  

যে ব্যক্তি একমাত্র আল্লাহ পাকের উদ্দেশ্যেই কাউকে ভালবাসে বা আল্লাহ পাকের জন্য কারো সাথে শত্রুতা পোষণ করে এবং আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টির জন্য দান খয়রাত করে কিংবা আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টির জন্য দেয়া থেকে বিরত থাকে, সে ব্যক্তি অবশ্যই তার ঈমানকে পূর্ণ করে নিল। (আবু দাউদ, ৪র্থ খন্ড, ২৯০ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ৪৬৮১)

দুজন ব্যক্তি যখন একমাত্র আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে একে অপরকে ভালবাসে, তাদের মধ্যে সম্পর্ক তখনই ছিন্ন হয়, যখন তাদের একজন কোন গুনাহে লিপ্ত হয়। (আল আদাবুল মুফরাদ, ১২১ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ৪০৬) 

অর্থাৎ আল্লাহ পাকের জন্য যে মুহাব্বত হয় সেটার পরিচয় হলো, যদি একজন গুনাহ করে তবে অপরজন তার কাছ থেকে পৃথক হয়ে যাবে। (বিস্তারিত জানার জন্য মাকতাবাতুল মদীনা কর্তৃক প্রকাশিত ‘বাহারে শরীয়াত’ ১৬ অংশ, পৃষ্ঠা ২১৭-২২২ পাঠ করুন)