রিযক নিয়ে পেরেশান? | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

ইবন হিব্বান এর বর্ণনা, রাসূলে আরাবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন— “বান্দার রিযক তাকে এমনিভাবে তালাশ করে, যেভাবে তার মৃত্যু তাকে তালাশ করে।”

পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তে আপনি থাকুন না কেন, মৃত্যু আপনার নিকট পৌঁছাবেই। দুনিয়ার সকল মানুষও যদি একত্র হয়ে যায় তবুও আপনার মৃত্যুকে কেউ ঠেকাতে পারবে না। তদ্রূপ, পৃথিবীর যেখানেই আপনি থাকুন না কেন আপনার রিযক আপনার নিকট যেকোনো মূল্যে পৌঁছাবে। কেউ সেটা আটকাতে সক্ষম নয়।

তাহলে এতটাও দুশ্চিন্তা কিসের? কেন এত উদাসীন আপনি? কেন অন্যজনের ধন-দৌলত দেখে আপনার হাতাশা বাড়ছে? কেনই বা এই রিযক'কে পাওয়ার জন্য হারাম পন্থা অবলম্বন?

আপনার তাকদ্বীরে যদি মিলিনিয়ার, বিলিনিয়ার হওয়া লেখা থাকে, তবে কে আছে সেটাতে বাধা দিবে! তাই নিজের প্রচেষ্টা হালাল পন্থায় চালিয়ে যান। রবের ওপর সন্তুষ্ট থাকুন। তার ওপর ভরসা রাখুন। ফলাফল সোপর্দ করে দিন রব তায়ালার কাছে। হতাশ হবেন না।

❝যখন তোমরা কোনো কাজের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করো, তখন তোমাদের উচিত আল্লাহর ওপর তাওয়াক্কুল করা। নিশ্চিয়ই আল্লাহ তওয়াক্কুলকারীদের ভালোবাসেন।❞ [কোরআন ৩:১৫৯]

❝যদি আল্লাহ তোমাদের সাহায্য করেন, তবে কে আছে তোমাদের ওপর জয়ী হবে? আর যদি আল্লাহ তোমাদের পরিত্যাগ করেন, তবে কে আছে সাহায্য করবে?❞ [কোরআন ৩:১৬০]


~স্বাধীন আহমেদ