আত্মহত্যা! | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

রাসূলে আরাবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন— 

তোমাদের পূর্ববর্তী উম্মতের এক ব্যক্তির শরীর থেকে ফোঁড়া বের হয়েছিল। সে অসহ্য যন্ত্রণা অনুভব করতে লাগল। পরক্ষণেই এক ধারালো তীর দ্বারা আঘাত করে সে ফোঁড়াটি ছিড়ে ফেলল। তাতে রক্ত প্রবাহিত হতে লাগল এবং তা বন্ধ করা সম্ভব হলো না। ফলে সে মারা গেল। আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন- 'আমি তার ওপর জান্নাতকে হারাম করে দিলাম।' -সহিহ বুখারী, ৭১ পৃষ্ঠা, হাদীস: ১৮০

আল্লামা নববী রাহিমাহুল্লাহ বলেন, আলোচ্য হাদীসের ফলাফল কিছুটা এমন– সে ব্যক্তি সেচ্ছায় দ্রুত মৃত্যুবরণ করার জন্য আত্মহত্যা করেছে অথবা এমন কোনো কাজ করেছে, যার কারণে তার ওপর জান্নাত হারাম বলা হয়েছে। নতুবা নিশ্চিত ধারণার ভিত্তিতে চিকিৎসা ও প্রতিষেধক স্বরুপ ফোঁড়াকে অপারেশন করা হারাম নয়।

হাদীসে পাকে এসেছে– ‘যে ব্যক্তি যে বস্তু দ্বারা আত্মহত্যা করবে, তাকে জাহান্নামে সে বস্তু দ্বারা শাস্তি প্রদান করা হবে।’ -সহিহ বুখারী, ৪র্থ খন্ড, ২৮৯ পৃষ্ঠা, হাদীস নং: ৬৬৫২

আফসোস! যিনি মানুষকে আত্মহত্যা থেকে বাঁচানোর জন্য এসেছেন, কঠিনভাবে সতর্ক করেছেন এর থেকে দূরে থাকার জন্য, আজ আমাদের মধ্যে মুসলিম সেঁজে, আলেম সেঁজে কিছু পথভ্রষ্ট– সেই প্রিয় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে পাগল বলছে, তাঁকে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন বলে মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে। নাউজুবিল্লাহ 

আল্লাহ তায়ালা বদ-মাযহাবীদের থেকে আমাদের ঈমানকে হেফাজত করুন।