প্রত্যেক প্রাণিকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবেঃ | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

আল-কুরআন থেকেঃ

মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ইরশাদ করেন,

1.

‘প্রত্যেক প্রাণিকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। আর কিয়ামতের দিন তোমাদের পরিপূর্ণ প্রতিদান দেওয়া হবে। তারপর যাকে দোজখ থেকে দূরে রাখা হবে এবং জান্নাতে প্রবেশ করানো হবে, সেই হবে সফলকাম। "আর পার্থিব জীবন ধোঁকার বস্তু ছাড়া কিছুই নয়।"
[সুরা আল ইমরান : আয়াত ১৮৫]

2.

‘প্রত্যেক প্রানীকেই মৃত্যুর স্বাদ আস্বাদন করতে হবে। আমি তোমাদেরকে মন্দ ও ভালো দ্বারা পরীক্ষা করে থাকি এবং আমারই কাছে তোমরা প্রত্যাবর্তিত হবে।’
[সুরা আম্বিয়া : আয়াত ৩৫]

3.

‘তোমরা যেখানেই থাক না কেন, মৃত্যু অবশ্যই তোমাদেরকে পাকড়াও করবে। যদি তোমরা সুদৃঢ় দূর্গের ভেতরেও অবস্থান কর, তবুও।’
[সুরা আন নিসা : আয়াত- ৭৮]

4.

'আল্লাহই জীবন দান করেন এবং মৃত্যু দেন। তোমাদের সমস্ত কাজই, তোমরা যা কিছুই কর না কেন, আল্লাহ সবকিছুৃই দেখেন।’
[সুরা আল ইমরান : আয়াত ১৫৬]

5.

‘আপনি কি তাদেরকে দেখননি, যারা মৃত্যুর ভয়ে নিজেদের ঘর ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন? অথচ তারা ছিল হাজার হাজার। তারপর আল্লাহ তাদেরকে বললেন মরে যাও। তারপর তাদেরকে জীবিত করে দিলেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ মানুষের উপর অনুগ্রহকারী। কিন্তু অধিকাংশ লোক শুকরিয়া প্রকাশ করে না।’
[সুরা বাকারা : আয়াত ২৪৩]

6.

‘বলুন, তোমরা যে মৃত্যু থেকে পলায়ন কর, সেই মৃত্যু অবশ্যই তোমাদের মুখামুখি হবে, অতঃপর তোমরা অদৃশ্য, দৃশ্যের জ্ঞানী আল্লাহর কাছে উপস্থিত হবে। তিনি তোমাদেরকে জানিয়ে দিবেন সেসব কর্ম, যা তোমরা করতে।’
[সুরা আল জুমুআহ : আয়াত ৮]

7.

‘যখন তাদের কারও কাছে মৃত্যু আসে, তখন সে বলে, হে আমার পালনকর্তা! আমাকে পুনরায় (দুনিয়াতে) প্রেরণ করুন। যাতে আমি সৎকর্ম করতে পারি, যা আমি করিনি। কখনই নয়, এ তো তার একটি কথার কথা মাত্র। তাদের সামনে পর্দা আছে পুনরুত্থান দিবস পর্যন্ত।’
[সুরা আল মুমিনুন : আয়াত ৯৯-১০০]

8.

‘ফেরেশতারা তাদের জান এমতাঅবস্থায় কবজ করে যে, তারা নিজেদের উপর জুলুম করেছে। তখন তারা অনুগত্য প্রকাশ করবে যে, আমরা তো কোনো মন্দ কাজ করতাম না। হ্যাঁ, নিশ্চয় আল্লাহ সব বিষয় অবগত আছেন, যা তোমরা করতে। অতএব, জাহান্নামের দরজাসমূহে প্রবেশ কর, এতেই অনন্তকাল বাস কর। আর অহংকারীদের আবাসস্থল কতই নিকৃষ্ট।’
[সুরা নাহল : আয়াত ২৮-২৯]

9.

‘প্রত্যেক ব্যক্তির নির্ধারিত সময় যখন উপস্থিত হবে, তখন আল্লাহ কাউকে অবকাশ দেবেন না। তোমরা যা কর, আল্লাহ সে বিষয়ে খবর রাখেন।’ [সুরা মুনাফিকুন : আয়াত ১১]

10.

‘এ মাটি থেকেই আমি তোমাদের সৃজন করেছি, এতেই তোমাদের ফিরিয়ে দিবো এবং পুনরায় এ থেকেই আমি তোমাদের উঠাইব’ [সূরা ত্বাহা : ৫৫]

11.

"ফেরেশতা যখন তাদের মুখমন্ডল ও পৃষ্ঠদেশে আঘাত করতে করতে প্রাণ হরণ করবে, তখন তাদের অবস্থা কেমন হবে?"
[সূরা মুহাম্মদ, আয়াত: ২৭]

12.

"আর যদি তুমি দেখ, যখন ফেরেশতারা কাফেরদের জান কবজ করে; প্রহার করে, তাদের মুখে এবং তাদের পশ্চাদদেশে আর বলে, জ্বলন্ত আযাবের স্বাদ গ্রহণ কর।"
[সূরা আল আনফাল, আয়াত: ৫০]

13.

"নিশ্চয় যারা বলে, আমাদের পালনকর্তা আল্লাহ, অতঃপর তাতেই অবিচল থাকে, তাদের কাছে ফেরেশতা অবতীর্ণ হয় এবং বলে, তোমরা ভয় করো না, চিন্তা করো না এবং তোমাদের প্রতিশ্রুত জান্নাতের সুসংবাদ শোন।"
[সূরা হা-মীম সিজদাহ্, আয়াত: ৩০]

14.

"ফেরেশতা যাদের জান কবজ করেন তাদের পবিত্র থাকা অবস্থায়, এই বলে যে, তোমাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক। তোমরা যা করতে, তার প্রতিদানে জান্নাতে প্রবেশ কর ।"
[সূরা নাহল, আয়াত: ৩২]

15.

"হে প্রশান্ত মন, তুমি তোমার পালনকর্তার নিকট ফিরে যাও সন্তুষ্ট ও সন্তোষভাজন হয়ে।"
[সূরা আল ফজর, আয়াত: ২৭-২৮]

আল-হাদিস থেকেঃ

রাসূলুল্লাহ সা: ইরশাদ করেন, ‘তোমরা পার্থিব সুখ-সম্পদ ও স্বাদ ধ্বংসকারী মৃত্যুকে খুব বেশি করে স্মরণ করো’ (তিরমিজি শরিফ)।

নবীজী আরো ইরশাদ করেন, ‘ওই ব্যক্তি সবচেয়ে বুদ্ধিমান, যে মৃত্যুকে সর্বাধিক স্মরণ করে এবং সেজন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করে’ (ইবনে মাজাহ)।