মুহাররম ও আশুরা শরীফ বা ১০ই মহরম শরীফ এত মর্যাদার কেনো? | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

আমরা আজ এমন একটিমাস সম্পর্কে আলোচনা করব যেই মাসটির ১০ তারিখের সহিত পৃথিবী সৃষ্টি থেকে শুরুকরে কেয়ামত পর্যন্ত এই দিনটিতে বিভিন্ন ঘটনা আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ঘটিয়েছেন বিভিন্ন নবী রাসূলগণ তাদেরউম্মতের মধ্যে যা পৃথিবী ধবংস পর্যন্ত সাক্ষী হয়ে থাকবেএই দিনটি প্রত্যেক মুসলিমদের কাছে যে কত গুরুত্বপূর্ণ তা বলার উপেক্ষা রাখেনা কিন্তু কিছু কতিপয়নামধারী মুসলিম এই দিনটি আসলে তারাবলে এটা শিয়াদের দিন কা কার্যক্রম আফসোস তাদের প্রতিযারা এখনো শিয়াসূন্নীদের পার্থক্য বুঝেনা তাই তাদের জন্যআজকের এই দিনটির এত মর্যাদা কেন তা তুলে ধরলামকোরান হাদীসে বর্ণিত বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে...

মুহাররম আশুরার অর্থ-
আরবী বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস মহাররম মাস মহররাম শব্দের অর্থ অলঙ্ঘনীয় পবিত্র মহাররম মাসেরদশম তারিখ আশুরানামে সু-পরিচিত আরবী আশারা শব্দথেকে আশুরার পত্তি আশারা মানে দশ, আর আশারাকেই বিশেষ সম্মান সহকারেআশুরা বলা হয় বলে ধারণা করা হয়
পৃথিবীর সৃষ্টির শুরু থেকেই১০ই মহাররম তথা আশুরার একটি বিশেষভুমিকা পরিলক্ষিত হয়ে আসছে মাসেরয়েছে অনেক বিজয়আর গৌরবমাখা ঐতিহ্যের স্মৃতি

মুহাররম আশুরা শরীফবা ১০ই মহরমশরীফ এত মর্যাদার কেনো?
--------------------------------------------------------
অন্যান্য দিনের চেয়ে পবিত্র আশুরা শরীফ বা ১০ই মহরম শরীফউনাদের গুরুত্ব মাহাত্ম এতবেশী মর্যাদাশালী কারণ এই পবিত্র দিনের সাথে জড়িয়েরয়েছে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার সকল গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাস |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন আসমান , জমিন , লৌহ , কলম সৃষ্ঠি করেছেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে কিয়ামত সংঘটিত হবে |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে আমাদের আদি পিতা আদম আলাইহিস সালাম উনার দোয়াকবুল হয়েছিল আমাদের নূর নবীজি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উসিলায়
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে হজরত নূহ আলাইহিস সালাম উনারকিস্তিকে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন মহা প্লাবনের হাত থেকে রক্ষা করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে হজরত ইব্রাহিম আলাইহিস সালামকে মহানআল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন নমরুদের অগ্নিকুন্ড থেকে রক্ষা করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে ইব্রাহিম আলাইহিস সালামখলিলুল্লাহ উপাধী লাভ করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে হজরত আইয়ুবআলাইহিস সালাম উনাকেমহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন কঠিনঅসুখ থেকে শিফাদান করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন হজরত ইউনুস আলাইহিস সালাম উনাকে মাছেরপেটে বিপদে ফেলেছিলেন এবং এই দিনেইউনাকে বিপদ থেকেরক্ষা করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন হজরত ইউসুফ আলাইহিস সালামকে কঠিন বিপদহতে মুক্ত করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন ৪০ বছর পর হজরত ইউসুফ আলাইহিস সালাম উনারপিতা হজরত ইয়াকুব আলাইহিস সালামের পুনর্মিলন করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন জালেম ফেরাউনকে নীল নদে ডুবিয়ে মেরেছিলেন এবং মুসা আলাইহিস সালাম উনারসঙ্গী সাথীদেরকে নীল নদ পার করেছিলেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে মহান আল্লাহ পাক আব্বুল আলামিন হজরত ইদ্রিস আলাইহিস সালাম উনাকে আসমানে উঠিয়ে নিয়েছিলেন এবং চিরস্থায়ীভাবে জান্নাতে প্রবেশ করান |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনে হজরত ঈসা আলাইহিস সালাম দুনিয়াতে আগমন করেন এবং এই দিনেই উনাকেজীবিত অবস্থায় আসমানে উঠিয়ে নেওয়া হয় আবার ১০ই মহরমশরীফের এই দিনেইতিনি আমাদের প্রিয়নবি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আখেরী উম্মতহয়ে পুনরায় দুনিয়াতে আগমন করবেন |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনেই ইসলামের ইতিহাসের সবচেয়ে বেদনাদায়ক নির্মম ঘটনা কারবালায় ঘটেছে ! আহলে বায়াত শরীফ উনাদের অন্যতম এবং মুসলিম উম্মার প্রিয় ইমামউজ্জ্বল নক্ষত্র বেহেস্থী পুরুষদের সর্দার ইমামহোসাইন আলাইহিস সালামউনাকে মুনাফেক ইয়াজিদ বাহিনী নির্মমভাবে শহীদ করেছে, উনি সহ আরো ১৮ জন আহলে বায়াত আলাইহিমুস সালামকেও শহীদ করা হয়েছে |
১০ই মহরম শরীফের এই দিনেই ইমাম মাহদীআলাইহিস সালাম পৃথিবীতে আগমন করবেন এবং অশান্ত দুনিয়াকে শান্ত করবেন |
(উসদুল গাবাহ /২১)
সম্মানিত প্রিয় পাঠকগণ আশাকরি এই দিনটি যে কত গুরুত্বপূর্ণ এই ঘটনাগুলি পর্যালোচনা করলেই বুঝা যায় এই দিনটি শুধু কারবালার হৃদয় বিদারক এর দিবস নয় এই দিনটি সৃষ্টির শুরুথেকে পৃথিবী শেষ পর্যন্তের সহিত সংযুক্ততাই আসূণ আমরা এই দিনটিতে রোযা রেখেকোরান তেলাওয়াত জিকির আসকার মিলাদ মাহফিল করে কাটিয়ে দেই...আল্লাহ আমিন...প্রচারে...মোখলেছিয়া সূন্নী খানকা শরীফ