ওমর ফারুখে আযম | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

"ওমর ফারুকে আযম"
[লেখক :: আরিফ ওয়াকিজ]
২৬ জিলহজ্ব আমিরুল মুমেনিন ইসলামের দ্বিতীয়  হযরত ওমর ফারুকে আযম রাঃ'র পবিত্র শাহাদাত দিবস,

রাগে ফাটিয়া অগ্নি লাল হয়ে
এলো মুনিবের দুওয়ারে,
দেখিয়া নূরি দোহার ঝলক
শীতল করিলো তারে।

চরণ ধরিয়া ওমর লুটিয়া
কহে ওগো মোর রাব্বানা,
আসিলাম কই পাইলাম দেখা
এ কোন নূরি জনা?

বুকে ধরেছি কালেমা তৈয়্যব
হাতে তলোয়ার মোর,
সামনে দাড়াবি সাহস কেমন
কোন সে কাফের গোর?

গুস্তাখির ফলে ক্ষমা নয় সাজা
পেয়েছে আপন জনক,
শিরোচ্ছেধ করি নরকে ঠেলিয়া
বনিলো প্রেম রক্ষক।

খোদার দয়া নবীর দোয়া
তিনি আমিরুল মুমেনিন,
যাহার গর্জনে আরব ভুমিতে
প্রকাশ্যে ছড়ালো দ্বীন।

নবীর প্রেমের দরিয়ায় সদা
বাসিতো দিবা নিশি,
রহিয়াছে আজো আশেক হইয়া
মালিকের চরণ ঘেঁসি।

আসওয়াদ তোরে চুমিবার সাধ
মোর দিলে একটুও নাহি,
চুমিলো তোরে সম্রাটে কুল
ফলে আমিও এদিক বহি।

ধন মান সব দিয়েছো ঠেলিয়া
মুনিবের চরণ জুগলে
ইসলামের তুই মহান রতন
মুনিব হাসিয়া বলে।

অর্ধ জাহানে যার হুকুমত
চলিত ন্যায়ের সাথে,
হাটিয়া হাটিয়া রাজ্য ঘুরিয়া
দেখিতো সকল রাতে।

যাহার সততা উচ্চ শিরে
থাকিবে সারা জনম,
তিনি মহারাজ হুকুমত মোর
ওমর ফারুকে আযম।

কোথায় তোরা ওমরের দল
রয়েছিস এখনো ঘুমিয়া,
দুশমনের দল মারছে থাবা
উঠরে আবার জাগিয়া।

আবার একজন ওমর পাঠাও
ওয়াকিজ দোয়ায় কহে,
শান্তির ইসলাম ধরার বুকে
সেরূপ যেনো ফের বহে।