কোরবানী করার পদ্ধতি এবং কোরবানী সম্পর্কে জরুরী মাসাইল। | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

কোরবানী করার পদ্ধতি এবং কোরবানী সম্পর্কে জরুরী মাসাইল।
✍ লেখকঃ- মুফতী আলমগীর হুসাইন রেজভী আন-নাজেরী। অধ্যক্ষ, জামি'আ-এ ইলমে মদিনা, সতরশ্রী, নেত্রকোনা।
--------------------------------------------------------------------------
▪ কুরবানির পশু উল্লেখিত শর্তগুলো মোতাবেক হবে এবং ঐসকল ত্রুটি হতে মুক্ত হবে, যে কারনে কুরবানি নাজায়েজ হয়।
▪ পশু ভাল এবং মোটা-তাজা হবে।
▪ কুরবানি করার পূর্বে পশুকে ঘাস-পানি দিবে, যেন ক্ষুদার্ত ও  পিপাসার্ত অবস্থায় জবাই করা না হয়।
▪ একটি পশুর সামনে অন্যটি জবাই করবে না।
▪ প্রথমে ছুরি ধারালো করে নিতে হবে।
▪ অতপর পশুটিকে বাম পাশে কেবলা মুখী করে শুইয়ে দিবে এবং নিজের ডান পা পশুটির গলার উপর রেখে তারাতারি জবাই করে দিবে।
▪ জবাই করার প্রথমে এ দোয়া পড়ে নিবে—

اني وجهت وجهي للذي فطر السموات والارض حنيفا وما انا من المشركين. ان صلاتي ونسكي ومحياي ومماتي لله رب العالمين. لاشريك له وبذالك امرت وانا من المسلمين

উচ্চারণ: ইন্নী ওয়াজ্জা'হতু ও্যাজুহিয়া লিল্লাযী ফাতারাস্ সামা-ওয়া-তি ওয়াল আরদ্বা হানীফা ওয়ামা আনা- মিনাল্ মুশরিকীন। ইন্না ছলা  তী ওয়া নুসুকী ওয়া মা'হ্ইয়া-ইয়া ওয়া মামা-তী লিল্লা-হি রাব্বিল আ- লামীন। লা-শারীকা লাহু ওয়া বিযা-লিকা উমিরতু ওয়া আনা- মিনাল্ মুসলিমীন।

▪ কুরবানি নিজের পক্ষ হতে হলে জবাই করার পর নিমোক্ত এ দোয়াটি পড়বে—

اللهم تقبل مني كما تقبلت من خليلك ابراهيم عليه السلام وحبيبك سيدنا محمد صلي الله عليه وسلم

উচ্চারণ: আল্লা-হুম্মা তাক্বাব্বাল্ মিন্-নী কামা- তাক্বাব্বালতা মিন খালীলিকা ইবরা-হীমা ‘আলাইহিস্ সালাম, ওয়া হাবীবিকা সায়্যিদিনা মু'হাম্মাদিন্ (ﷺ)।

▪ আর যদি অন্যদের পক্ষ হতে জবাই করা হয় তবে مني (মিন্‌-নী) এর স্থলে من (মিন্) বলে তাদের নাম বলবে।
▪ যতক্ষণ পর্যন্ত পশুটি নিরব ও ঠান্ডা না হয়ে যায় ততক্ষণ পর্যন্ত হাত পা কাটবে না, চামড়া আলাদা করবে না।

✔ কোরবানী সম্পর্কে জরুরী মাসাইল।
---------------------------------------------------------
(১) নিজের কুরবানির পশু নিজ হাতে জবাই করাই উত্তম। অন্যের দ্বারা জবাই করালেও জায়েয হবে, তবে জবাই করার স্থানে উপস্থিত থাকা উত্তম।
(শামি)
(২) জবাই করার সময় ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার বলতে ভুলে গেলে পরে পড়ে নিবে।
(৩) জবাইকারী ক্বিবলামুখী হয়ে দাঁড়ানো সুন্নাতে মুয়াক্কাদা। বিনা প্রয়োজনে অন্যদিকে হওয়া মাকরূহ।
(৪) প্রত্যেক মুসলমান নারী-পুরুষ, বালেগ-নাবালেগ, সুস্থ-পাগল, পবিত্র বা অপবিত্র সকলের জন্যই জবাই করা জায়েয। তবে শর্ত হলো, জবাই করার শরয়ি পদ্ধতি জানতে হবে এবং জবাই করার সময় বিসমিল্লাহ পড়তে হবে।
(মালাবুদ্দামিনহু)
(৫) শরয়ি নিয়ম অনুযায়ী জন্তু জবাই করার সময় চারটি রগ কাটতে হয়। শ্বাস নালী, খাদ্য নালী এবং ওহার দুই পাশে দুটি রক্তের মোটা রগসহ কমপক্ষে তিনটি কাটা গেলে খাওয়া হালাল হবে। অথবা উল্লেখিত চার রগের বেশির ভাগ কাটা গেলে জন্তু খাওয়া হালাল হবে অন্যথায় হারাম হবে।
(শামি)
(৬) জবাই করার সময় সম্পূর্ণ গলা কেটে ফেলা মাকরূহ।
(ফাতহুল কাদির)
(৭) কুরবানির জন্তু মেশিন দ্বারা জবাই করা জায়েজ। কিন্তু শর্ত হলো, সুইচ চালু করার সময় বিসমিল্লাহ বলতে হবে এবং উল্লেখিত রগ সমূহ কাটতে হবে।
(৮) জবাই করার সময় জন্তুর গলার উপর পা রাখা হাদিস দ্বারা প্রমাণিত।
(৯) বিসমিল্লাহ পড়ার পর জন্তু পালিয়ে গেলে দ্বিতীয়বার জবাই করতে 'বিসমিল্লাহ পড়া ওয়াজিব।