কিয়ামতের পূর্বে হক্কানী উলামায়ে কেরামে ইন্তেকাল বেড়েই চলেছে (২৫ জন উল্লেখ করা হল) | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

হাদিসে মোবারকায় বর্ণিত কিয়ামতের আলামতগুলোর অন্যতম একটি আলামত হলো, দুনিয়া হতে ইলম তথা জ্ঞান উঠিয়ে নেয়া হবে। গত মে -২০২০ হতে আজ পর্যন্ত এই দেড় মাসে বিশ্ব মুসলিম উম্মার  উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অলি-আউলিয়া, বিশিষ্ট শায়খ-মাশায়েখ, উস্তাদ, আলেম-ওলামায়ে কেরামগণ আপন মাশুকের সান্নিধ্যে চলে গেছেন। এমন জ্ঞানীগুণী, বুযুর্গানে দ্বীনের বিদায় দুনিয়া হতে ইলম তথা জ্ঞান উঠিয়ে নেয়ারই আলামত। বুযুর্গানে দ্বীনের পর্দা করার মাধ্যমেই ইলম বিলুপ্ত হতে পারে।  ইয়া রাব্বে মুস্তাফা, ক্ষমা করুন- রহম করুন মুস্তাফা কে ওয়াস্তে। 

উল্লেখিত সময়ে আপন মাশুকের সান্নিধ্যে চলে যাওয়া কয়েকজন বুযুর্গানে দ্বীনের তথ্য-সংবাদ এখানে উল্লেখ করা হলো।

০১. আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ”- এর আজীবন চেয়ারম্যান, ইমামে আহলে সুন্নাত, লক্ষ লক্ষ আলেমের ওস্তাদ, শায়খুল মাশায়েখ, সুন্নীদের অভিভাবক, উস্তাজুল উলামা ওয়াল মুহাদ্দেসীন, ফকিহুল মিল্লাত, পীরে তরিকত হযরতুল আলহাজ্ব আল্লামা কাজী মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম হাশেমী (রহঃ)।



০২. লেবাননের আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়তের মূল স্তম্ভগুলোর শীর্ষ বুজুর্গ, আওলাদে রাসূল (দরুদ), শায়খুল মাশায়েখ, সর্বজনীন শ্রদ্ধেয় আলেমে দ্বীন, লেবাননসহ বহুদেশের প্রখ্যাত শায়খদের উস্তাদ, বৈরুতের বিখ্যাত সৈয়দুনা ইমাম আলী ইবনে তালিব মসজিদের খতীব ও ইমাম- শায়খ কাজী সৈয়দ মুহাম্মদ যাকারিয়া ঘানদূর (রহ.) ।
শায়খ লেবাননের আলেম সমাজে তারকার মত প্রজ্বলিত ছিলেন এবং তিঁনি শায়খদের ইমাম হিসেবেই বেশি পরিচিত লেবাননবাসীর কাছে। শায়খের জনপ্রিয়তা সাধারণ লোকদের মাঝেও চরম প্রভাব ফেলেছে, করোনা পরিস্থিতিতেও তাঁর দু'টি জানাজা নামায অনুষ্ঠিত হয়। একটি জানাজার ইমামতি করেন আওলাদে রাসূল, বিশ্ববরেণ্য ইসলামিক স্কলার, শায়খ ড. সৈয়দ জামিল হালিম, আরেকটি লেবানন প্রজাতন্ত্র মুফতী শায়খ আব্দুল লতীফ দারিয়ান।


০৩. তাফসীর, হাদীস, ও ফিকাহ শাস্ত্রের পন্ডিত ও অসংখ্য কিতাবাদীর লেখক সুফী শায়খ আব্দুর রাজ্জাক বাথহারলভী (রহঃ)। 
ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তানসহ বহু দেশে শায়খ আব্দুর রাজ্জাকের ছাত্ররা আজ ইসলামের খেদমত করছে। শায়খের প্রসিদ্ধ কিছু কিতাবের নামঃ
🖤 তাসকীনুল জান্নাহ ফি মাহাসিনে কানযুল ঈমান।
🖤 শরহে আকাঈদ।
🖤 নুযুমুল ফুরকান মিন তাফসীর আয়াতুল কুরআন।
🖤 খুলাসা-এ মুনাজারাহ রাশিদিয়া।
🖤 নুযুমুল তাহকীক।
🖤 খুলাসা-এ হুসামি।
🖤 মউত কা মানযার মা'আ আহওয়ালুল হাশর ও নশর।
🖤 তাকসিমুন নবুয়াত আউর তাহযিরুন নাস



০৪. পাকিস্তানের প্রবীণ ইসলামিক স্কলার, নকশবন্দিয়া তরিকা ও ছূরা শরীফ এর মূর্শিদ শাহ সুফী শায়খ হযরত সৈয়দ মুহাম্মদ কাবির আলী শাহ আল-জিলানী আল-নকশবন্দি (রহঃ)।



০৫. পবিত্র নগরী মদিনা মনোওয়ারার প্রবীণ ইসলামিক স্কলার, শায়খ ড. আসিম হামদান।



০৬. ইয়ামেনে শাজিলিয়া তরিকার মূর্শিদ, এবং বিশেষ করে দারুল উলূম বিশ্ববিদ্যালয় ইয়ামেন'র শরীয়া ডিপার্টমেন্টের সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা, হাজার হাজার আলেম উলামাদের উস্তাদ মুফতী শায়খ মুহাম্মাদ আলি মু'রি (রহঃ)। ছোটবেলা থেকে দরিদ্রতার মধ্যে দিন যাপন করতেন, ইয়ামেনের বারবিকিউ একটি হোটেলে কাজ করে মা'কে নিয়ে বসবাস করতেন কিন্ত জ্ঞান পিপাসায় পিপাসিত হতে ছুটে বেড়িয়েছেন একপ্রান্ত থেকে আরেকপ্রান্তে। ইয়ামেনের রাষ্ট্রী আদালতের শরীয়া বিচারক হিসাবে এবং রাষ্ট্রীয় মুফতী হিসাবে বহুদিন কর্মরত ছিলেন। এছাড়া তাঁর নিজে প্রতিষ্ঠিত "দারুল উলূম বিশ্ববিদ্যালয়" ইয়ামেনের জ্ঞান বিজ্ঞান পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে অনন্য ভূমিকা পালন করেছেন।
তাঁর জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন তাঁর বিশ্ববিদ্যালয় এবং হাজার হাজার ছাত্র/ছাত্রী রেখে শায়খ মু'রি এই পৃথিবী ছেড়ে গেছেন।
 


০৭. তুরষ্কের অন্যতম ইসলামিক স্কলার ও নকশবন্দিয়া তরিকার মূর্শিদ শাহ সূফী শায়খ সৈয়দ মুহাম্মদ সালিম আল-নকশবন্দি আল-তুর্কি (রহঃ) ১২ জুন মদিনা শরীফে ইন্তেকাল করেন।


০৮. ইয়ামেনের প্রবীণ ইসলামিক স্কলার, তারিম শহরের মুকাল্লা হাদার মউতের মুফতী, শায়খ হাবিব আলি বিন মুহাম্মাদ মুদাইহাজি (রহঃ)। 
শায়খ তরুণ বয়স থেকেই তারিমে একাধারে কাজী, মুফতী, ইমাম ও খতিবের দায়িত্বে ছিলেন এবং বহু স্কলারদের উস্তাদ তিনি। আওলাদে রাসুল শায়খ হাবিব উমর বিন হাফিজ তাদের মধ্যে অন্যতম।



০৯. ইয়ামেনের সবচেয়ে প্রবীণ ইসলামিক স্কলার, শাজিলিয়া ও বালোবীয়া তরিকার মূর্শিদ সুফী শায়খ আল-হাবিব আগিল বিন উমর বিন আব্দুল্লাহ বুসরী বিন সাহল মাওলানা খেঈলাহ (রহঃ)। 



১০. মরোক্কোর প্রবীন আলেমে দ্বীন শায়খ সৈয়দ মুহাম্মদ ইবনে মুখতার আল-ওয়াজ্জানি (রহঃ)।


১১. ইয়ামেনের ইলমের নক্ষত্র, নবী বংশের একটি প্রজ্বলিত প্রদীপ,
ইয়ামেনের তারিম শহরের প্রধান মুফতী, হাজার হাজার শায়খের উস্তাদ, শাজিলিয়া তরিকার পীর, শায়খ সৈয়দ হাবিব ওমর বিন হাফিজ এর আপন বড় ভাই, শায়খ সৈয়দ হাবিব আলি আল মাশহুর বিন মুহাম্মাদ বিন সেলিম বিন হাফিজ (রহঃ) সারা পৃথিবীতে তাঁর বহু ছাত্র ছড়িয়ে আছে।


১২.সুদানের সামানিয়া তরিকার মূর্শিদ, শায়খ সৈয়দ আহমাদ আত-তৈয়ব আল-সুদানী আল-সামানিয়া (রহঃ)।



১৩. পাকিস্তানের নকশবন্দিয়া তরিকার ও পেশওয়ারের প্রসিদ্ধ আব্দ দরবার শরীফের মূর্শিদ শায়খ আবুল খায়ের মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ জান আল-নকশবন্দি (রহঃ) শায়খ আব্দুল্লাহ জান ইউকের অন্যতম গুলহার দরবার শরীফের শায়খ এর শ্বশুর।


১৪. শাজিলিয়া তরিকার অন্যতম মূর্শিদ, সৌদি আরবের প্রবীণ শায়খ, সুফী আল উস্তাদ, আল-আরিফ বিল্লাহ সৈয়দ হাবিব মুহাম্মদ বিন আহমাদ আল-আত্তাস (রহঃ)। 



১৫. আফ্রিকায় তরিকত চর্চায় যারা অগ্রগামী তাদের মধ্যে অন্যতম শায়খ সুফী মুফতি ইসাক যাবাতি (রহঃ)। 


১৬. তুরষ্কের প্রাচীন হেলভেতি তরিকা তথা মৌলভী তরিকার মূর্শিদ, শায়খ সালেহ বাশির হাজ্বী আল-হালাবী (রহঃ)। 


১৭. বীরের দেশ খ্যাত তুরষ্কের প্রবীণ আলেমে দ্বীন, শায়খ মাহমুদ এফেন্দীর সমসাময়িক স্কলার, তুর্কীসহ বহুদেশের বিখ্যাত স্কলারদের উস্তাদ, শায়খ মুসা বায়রাকতার (রহঃ)। শায়খ একজন আর্কিটেক্ট ছিলেন, ইস্তাম্বুল শহরে কাজের তাগিদে এলে শায়খ মাহমুদ এফেন্দি বলেন, "হে হাজী মুসা, নিজের এলাকার মসজিদগুলো যে ভাঙ্গতে বসেছে, ইস্তাম্বুলে কি দালান বানাবেন আপনি?" শায়খ মুসা ছেড়ে দিলেন দুনিয়ার মোহ লেগে গেলেন ইসলামের খেদমতে।


১৮. সামানিয়া তরিকার শায়খ, সুদানের প্রখ্যাত সুফী হযরত শায়খ মুহাম্মাদ হাসসান আহমাদ আল-আওয়াদ আল-সামানিয়া (রহঃ)।


১৯. ইয়ামেনের প্রবীণ ইসলামিক স্কলার, তারিম শহরের উল্লেখযোগ্য মসজিস আস'সেগাফ এর খতীব ও ইমাম সুফী শায়খ আল-হাবিব আব্দুল্লাহ বিন আলি বিন আব্দুল্লাহ বিন আয়দ্রুস আল-আয়দ্রুস (রহঃ)। শায়খ আব্দুল্লাহ আওলাদে রাসূল শায়খ হাবিব উমর বিন হাফিজ এর শ্বশুরের সহোদর তথা হাবিব উমরের চাচা শ্বশুর ছিলেন। কিছুদিন পূর্বে শায়খের ভাই শায়খ সৈয়দ আল-হাবিব আহমাদ বিন হুসাইন আল-আয়দ্রুসও ইন্তেকাল করেন।
পবিত্র রমজান শরীফ থেকে এই পর্যন্ত শায়খ হাবিব উমর বিন হাফিজ তাঁর সহদোর ভাইসহ অনেক বুজুর্গ আত্মীয় হারিয়েছেন।


২০. আলজেরিয়ায় কাদেরিয়া তরিকার মূর্শিদ শায়খ মুহাম্মাদ হাসান হাসানী শরীফ আল-কাদেরি (রহঃ)। 


২১. বিখ্যাত ফিলোসোফিক্যাল ব্যক্তিত্ব, যাঁকে এই যুগের (কালজয়ী মুসলিম দার্শনিক) ফারাবী বলে আখ্যায়িত করা হয়। প্রখ্যাত আকাঈদবিদ ও দার্শনিক শায়খ ড. মুহাম্মদ আব্দুল ফাদিল আল-কুসি (রহঃ)। তিনি শায়খ; মুহাম্মাদ কুসি নামেই বেশী পরিচিত ছিলেন। এছাড়া শায়খ মিশরের সাবেক মন্ত্রী ছিলেন, মিশর আল-আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রো-ভিসিসহ আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক ফিলোসোফি ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর ছিলেন। উনার মত দার্শনিক বর্তমান বিশ্বে খুবই বিরল বলে অনেক স্কলারগণ বিশ্বাস করেন।


২২. শামের আরেকটি নক্ষত্র মেঘের আড়ালে চলে গেলেন- সিরিয়ার প্রসিদ্ধ আলেমে দ্বীন শায়খ সৈয়দ ইসমাইল আল রিফায়ী (রহঃ)। 


২৩. শায়খ আহমাদ রাযি আল-মিশরী মিশরে ও আল উস্তাদ শায়খ আব্দুল কাদির শুখাইর আল-দামেশকি (রহঃ)। 


২৪. ইয়ামেনের তারিম শহর দুই দিনের ব্যবধানে আরেকজন আলেম হারালো, আওলাদে রাসূল শায়খ হাবিব ওমর বিন হাফিজ এর শ্বশুর, শায়খ হাবিব আহমাদ বিন হুসাইন বিন আলী বিন আব্দুল্লাহ আল আয়দ্রুস (রহঃ) প্রভুর সান্নিধ্যে চলে গেলেন। শায়খ যথারীতি শাজিলিয়া ও বা'আলাওয়ী তারিকার শায়খ বা পীর ছিলেন। 


২৫. তিজানী তরিকার অন্যতম পীর ও মূর্শিদ শায়খ হাজী ইমাম সেলিম জসেপ আল তিজানী (রহঃ)। তিনি ইউএসের মিশিগানে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করে প্রভুর সান্নিধ্যে চলে গেলেন।