হাউজে কাউসার | ইসলামী বিশ্বকোষ ও আল-হাদিস

হাউজ حوض  শব্দের আভিধানিক অর্থ হলো, কুপ, কুয়া বা  পানি সংরণের   নিমিত্তে নির্মিত গর্ত। যেমন  ফতহুল বারী শরহে বুখারি নামক গ্রন্থে বর্ণিত হয়েছে এভাবে-

جمع الحوض حياض واحواض وهو مجمع الماء-
অর্থ:     حوض   শব্দটি    একবচন।   বহুবচনে    حياض    বা احواض । এর অর্থ হলো- পানি সংরণের স্থান।

অতএব হাউজে কাউছার حوض كوثر হলো জান্নাতের ঐ ঝর্ণা  বা  কুয়া।  যেই    কুয়ার  মাঝে  আবে    কাউছার    বা কাউছারের  পানি  সংরতি  আছে।   সেই  হাউজ   থেকেই হাশরবাসীদের   জন্য  কাউছারের   পানি  সরবরাহ   করা হবে। অবশ্যই    এ  বিষয়ে উলামায়ে কেরামদের  মধ্যে  যথেষ্ট  মতানৈক্য  রয়েছে   যে,   হাউজের  সংখ্যা  কয়টি, এর   অবস্থান  কোথায়?   নবীজির  হাউজ    ব্যতীত  অন্য কারো   জন্য   হাউজ   থাকবে   কি   না?   তদুপরি   বিশুদ্ধ  অভিমত  অনযায়ী নবীজির জন্য হাউজ  থাকবে দুইটি। একটি হবে জান্নাতের ভিতরে অপরটি থাকবে হাশরের ময়দানে।        হাউজের      পানপাত্র      থাকবে       আকাশের নত্ররাজির     সমান।    নবী    করিম     সাল্লাল্লাহু     আলাইহি ওয়াসাল্লাম    কিয়ামতের  দিন  সেই    হাউজ  থেকে  তাঁর উম্মতদেরকে      পানি     পান      করাবেন।       এ      ব্যাপারে অনেকগুলো   হাদিস  বর্ণিত হয়েছে। ইমাম   বুখারি স্বীয় কিতাবে  باب  الحوض  বা  হাউজ  অধ্যায়  শিরোনামে  এ  সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি হাদিস উল্লেখ করেছেন-

عن عبد الله عن  النبى صلى  الله عليه وسلم انا فرطكم على الحوض
অর্থ: হযরত   আব্দুল্লাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে  বর্ণিত, নবী   করিম   সাল্লাল্লাহু     আলাইহি    ওয়াসাল্লাম   ইরশাদ করেন- আমি  তোমাদের জন্য হাউজের পাশে  উপস্থিত থাকব। (বুখারি) 

হযরত  আব্দুল্লাহ  বিন  আমর  রাদিয়াল্লাহু  আনহু  থেকে  বর্ণিত হাদিস-

قال  عبد  الله  بن  عمرو  رضى  الله  تعالى  عنه  قال  النبى  صلى  الله عليه وسلم  حوضى مسيرة شهر ماؤه  ابيض من اللبن وريحه اطيب من المسك وكينرانه كنجوم السماء من شرب منها فلا يظمأ ابدا- (بخارى)

অর্থ:  হযরত    আব্দুল্লাহ   বিন   আমর  রাদিয়াল্লাহু   আনহু বলেন-     রাসূলুল্লাহ     সাল্লাল্লাহু     আলাইহি     ওয়াসাল্লাম  ইরশাদ করেছেন আমার হাউজ হবে একমাসের রাস্তার দুরুত্ব  পর্যন্ত  প্রসারিত।   তার  পানি   দুধের     চেয়ে    শুভ্র, সুগন্ধি     মেশ্ক     আম্বরের     চেয়ে     অধিক     উত্তম     এবং  পানপাত্র  আকাশের  নত্ররাজির  সমান।  যে  ব্যক্তি  ইহা  থেকে একবার পান করবে, সে  আর কখনো পিপাসিত হবে না। (বুখারি)